লোকশিল্পী টগর অধিকারী সম্পর্কে খানেক তৈথ্য।

Posted by

টগর অধিকারী

উবজন: 1914 খ্রীষ্টাব্দে, কাংও কাংও কৈচে 1912 খ্রীঃ, যে বছর দশ হাত ধুতির দাম দশ আনা ছিল। 
মৃত্যু: জুন, 1972 খ্রীঃ। 
 

প্রবাদ প্রতিম ভাওয়াইয়া শিল্পী টগর অধিকারীর জন্ম তুফানগঞ্জের বারোকোদালী- 2 গ্রাম পন্চায়েতের দেবগ্রামত। উমার বাপের নাম শ্রীকান্ত অধিকারী আর মাও কলামতি দেবী। চার ভাই বোইনের ভিতরা টগরে সগার বড় ছিল। টগরক সগায় কানা টগর বুলি ড্যাকাইচে কারন উমরা অন্ধ ছিল। জন্মের অন্ধ না হৈলেও জন্মের দুইমাস পরে দুর্ঘটনার কারনে উমার দৃষ্টি শক্তি হারায়। উমার দাম্পত্য জীবনও দুঃখের ছিল, বিয়াওর দুই বছরের মাথাত উমার গিত্যানি পদ্মেশ্বরী দেবীর নিঃসন্তান অবস্থায় মৃত্যু হয়। 

উমার পরিবার পরিজন

উমরা পোথোমে সঙ্গীত শিক্ষা নেন গুরু চামরু চারকিয়ার টে; ইমারটে দোতরা, বীনা আর সারিন্দা বাজা শেখেন। তারপর গুরু প্রিয়নাথ রায় ওস্তাদের টে শেখেন তবলা, হারমোনিয়াম, খোল, সারিন্দা, বেহালা আর ঢোল। গুরু প্রিয়নাথ রায়ের সাথত আসাম আর বাংলার ভাইল্যা জাগাত গান করি ব্যাড়েয়া খ্যাতি লাভ করেন। 1932 সালত পোথোম গুরু সুরেন্দ্রনাথ রায় বসুনিয়ার সোতে দেখা হয় যার শিষ্য ভাওয়াইয়া সম্রাট আব্বাসউদ্দিনও ছিল। গুরু সুরেন্দ্রনাথ রায় বসুনিয়ার টে টগর অধিকারী শেখেন শাস্ত্রীয় সঙ্গীত আর ভাওয়াইয়া গান। পরে রবীন্দ্র সঙ্গীত আর নজরুল গীতিও শেখেন। 

1937 সালত সুরেন্দ্রনাথ রায় বসুনিয়া বাবুর দুইখান গান রেকর্ড হয় কলিকাতার এইচ এম ভি স্টুডিওত যা ভাওয়াইয়া গানের সগার পোথোম রেকর্ড ছিল। এই দুইখান গানত টগর অধিকারী দোতরা বাজান। এই গান দুইখান গোটায় উত্তরবঙ্গ আর লোয়ার আসামত খুবে জনপ্রিয় হয়া গেচিল।

উমার ডারিঘর

কামতাপুরী / রাজবংশী ভাষাত টগর অধিকারীর মেলা গান আছে তার মধ্যে দুইখান গান দেওয়া হৈল্ নিচত – 

শিদল আওটা খায়া চেংটি মাছের গেইল্ মানসন্মান
 
শিদল আওটা খায়া চেংটি মাছের গেইল্ মানসন্মান
ছিপছিপানি ঝড়ি পড়ে, ভ্যাত করি কান্দে ছাওয়া
হুরকা দেওয়ানির পোড়, পোড়ানি রাগ, না হৈল্ নাইওর যাওয়া। 
গেরামের মানসির নাইরে সুখ, কত কি সে দুর্গতি
বান বাইস্যা আসিলে হোড় ছাওয়া পোওয়ার আদানুটি
আগারাতি পাছারাতি কমোর জল ভাঙ্গি
টগর যায় গিদাল হয়া সেকি গানের ভঙ্গি।
ঢোকে ঢোকে খায় গরম চা, একটানে বিড়ি
গাইতে গাইতে যায় টগর সাধের দোতরা ধরি।


গান ব্যবসা সখের ব্যবসা পাইসার লোভে ঝাপায়
 
গান ব্যবসা সখের ব্যবসা পাইসার লোভে ঝাপায়
কত গিদালের বাড়ি গেইলে ভাই তামুক খোয়ের না পায়। 
তামুক বিনে কত গিদালের হুকাত না ধরে কাই, 
বাড়িত হৈলেক ভাঙা ডেরা হালোত বুড়ি গাই। 
মূল গিদাল মোহনের ব্যাটা নকরু তার হৈল্ নাম, 
ভরা সভা নাগিল ভাইরে গান না আইসে ফম। 
রামায়ণের বই দেখিয়া শিখচে কুষান গান,
বাড়ি বাড়ি যত চ্যাঙড়াক মানিয়া বেড়ায় ধান।
যেই চ্যাঙড়ার বাড়ি বুলি যায় সেই চ্যাঙড়ায় কয়,
শিয়ানোক না জিগ্গাস কইরলে যাওয়া হবার নয়।


Reference: টগর অধিকারী স্মারক গ্রন্থ , 2003// কারো টে আরো তৈথ্য থাকিলে দিবার পান।

Facebook Comments

Leave a Reply / Comment / Feedback